অভ্যাস বদলান, তরুণ থাকুন

বুড়ো হতে আর কে চায়? কে চায় চামড়ায় ভাঁজ, পাকা চুল অথবা দুর্বল একটা শরীর? অথচ প্রতিদিনই আমরা এমন কিছু কাজ করে চলেছি, নিতান্ত অভ্যাসের বসেই, যা আমাদের আরো তাড়াতাড়ি বুড়িয়ে যেতে সাহায্য করছে! দেখে নিন সেগুলি কী।

মাল্টিটাস্কিং

আধুনিক বিশ্বে একসঙ্গে অনেকগুলো কাজ করা বা ‘মাল্টিটাস্কিং’-এর প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়৷ রান্না করতে করতে কম্পিউটার বা প্যাড হাতে অফিসের কাজ, টেলিভিশন দেখতে দেখতে বাজারের লিস্ট অথবা খাওয়ার সময় বই বা জরুরি ফাইল নিয়ে বসা – এমন প্রত্যেকটি কাজই কিন্তু আদতে মানসিক চাপ বা ‘স্ট্রেস’ বাড়ায়৷ ক্যালিফোর্নিয়ার ডা. রেমন্ড কাসিয়ারির মতে, এতে কাজ তো ঠিকমতো হয়ই না, বরং মস্তিষ্কের কোষগুলির অসম্ভব ক্ষতি হয়।

ধূমপান

আমাদের শরীরের ওপর যে অভ্যাস, থুড়ি বদ অভ্যাসটির প্রভাব সবচেয়ে নেতিবাচক, সেটা হলো, ধূমপান৷ ধূমপান, তা সে আপনি করুন অথবা আপনার সামনে অন্য কেউ, ক্ষতি আপনার হবেই৷ সিগারেট বা বিড়ির ধোঁয়া আপনার ত্বককে শুষ্ক করে, ফলে অল্প বয়সেই চামড়ায় ভাঁজ এবং বলিরেখা দেখা যায়৷ এছাড়া ধূমপান শরীরে ভিটামিন সি-এর পরিমাণ হ্রাস করে৷ এতে ত্বক উজ্জ্বলতা হারিয়ে বয়স্ক মানুষদের ত্বকের মতো হয়ে যায়।

অপর্যাপ্ত ঘুম

প্রত্যেকটি মানুষের অন্তত সাত ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন৷ নিয়মিত এর চেয়ে কম ঘুম হলে, শুধু যে চোখের তলায় কালি পড়ে, তা-ই নয়, অপর্যান্ত ঘুম আয়ুও কমায়৷ যুক্তরাষ্ট্রের ডা. কাসিয়ারি জানান, একটানা কম ঘুম মানুষকে শারীরিকভাবে দুর্বল করে তোলে, হ্রাস পায় কর্মশক্তি৷ আপনি অন্য কোনো কারণ ছাড়া মোটা হয়ে যেতে পারেন৷ শুধু তাই নয়, এর ফলে মন খারাপ বা ‘ডিপ্রেশন’ হতে পারে, দেখা দিতে পারে জীবন সম্পর্কে বিতৃষ্ণাও।

অনুশীলন

এই বিশ্বায়নের যুগে আমরা যাঁরা ঘণ্টার পর ঘণ্টা কম্পিউটার, ল্যাপটপ নিয়ে বসে থাকি অথবা যাঁদের বসে কাজ করতে হয়, তাঁদের কিডনির অসুখ, উচ্চ রক্তচাপ, ক্যানসারের ঝুঁকি ও মুটিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা বেশি৷ এসব ঝুঁকি কমাতে নিয়মিত হাঁটাচলা, ব্যায়াম, সাঁতার কাটা বা অন্য কোনো শরীরচর্চা করা জরুরি৷ ‘ব্রিটিশ জর্নাল অফ স্পোর্টস মেডিসিন’ অনুযায়ী, সপ্তাহে মাত্র ১৫০ মিনিট শরীর চর্চা ১০ থকে ১৩ বছর পর্যন্ত আয়ু বৃদ্ধি করতে পারে।

গান শোনা

কানে কম শোনাও বুড়িয়ে যাওয়ার লক্ষণ৷ ভয়ের ব্যাপার, খুব বেশি জোরে গান শুনলে তা কানের ক্ষতি করতে পারে৷ অনেকেই শারীরিক পরিশ্রম অথবা মানসিক চাপ কমাতে অফিস বা স্কুল-কলেজ থেকে ফিরে নিজের পছন্দের গানটি একেবারে ‘ফুল ভলিউমে’ ছেড়ে দেন৷ কিন্তু নিয়মিত এমনটা করলে একটা সময় কানে কম শুনতে বাধ্য৷ আর আপনার যদি ‘ইয়ার ফোন’ লাগিয়ে জোরে গান শোনার অভ্যাস থাকে, তাহলে তো কথাই নেই!

মেকআপ

‘সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র’ – কথাটা সকলেরই জানা৷ তাই বলে অতিরিক্ত মেকআপের ব্যবহার কিন্তু ত্বকের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে৷ মেকআপ, বিশেষ করে তৈলাক্ত মেকআপ চামড়ার রোপকূপগুলো বন্ধ করে দেয়৷ এর ফলে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণও হতে পারে৷ এছাড়া প্রসাধনীর মধ্যে রাসায়নিক পদার্থ বা অ্যালকোহল থাকলে, তার ব্যবহারে চামড়া কুঁচকে যায়, বলিরেখা পড়ে৷ তাই রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে অবশ্যই মেকআপ তুলে ঘুমানো উচিত৷

মিষ্টিমুখ

আনন্দের খবরে আমরা মিষ্টিমুখ করার কথা বলি৷ কিন্তু অতিরিক্ত মিষ্টি খেলে মানুষ যে শুধু মোটা হয়ে যায়, তা-ই নয়, শর্করা জাতীয় খাদ্য বেশি খেলে চেহারায় একটা বয়সের ছাপও পড়ে৷ সাধারণভাবে রাসায়নিক বিক্রিয়ার মাধ্যামে শর্করা ও প্রোটিন ভেঙে প্রাণী দেহে কাজ করার মতো শক্তি জোগায়৷ কিন্তু শর্করার পরিমাণ যদি খুব বেশি হয়, তাহলে সেই প্রক্রিয়ায় ব্যাঘাত ঘটে এবং চোখের নীচে কালি ও বুড়োদের মতো ত্বকে ভাঁজ পড়ে।

চর্বিহীন খাবার

আপাতদৃষ্টিতে স্বাস্থ্যসচেতন বহু মানুষকে কম বয়সেই বুড়িয়ে যেতে দেখা যায়৷ এর কারণ একদম ফ্যাটহীন খাবার৷ ফ্যাটযুক্ত খাবার খেলে কোলেস্টোরল, হার্ট অ্যাটাকের প্রবণতা বাড়ে – এটা ঠিক, তবে সুন্দর, মসৃণ ত্বকের জন্য ওমেগা-থ্রি নামের ফ্যাটি-অ্যাসিডের গুরুত্বকে অস্বীকার করা যায় না৷ এটি সামুদ্রিক মাছ (স্যালমন, ম্যাকেরেল) এবং আখরোটে পাওয়া যায়৷ তাই শুধু ‘অ্যান্টি এজিং’ ক্রিম নয়, সপ্তাহে অন্তত দু’বার মাছ খেতে হবে!