১0টি পার্টটাইম জব: যা সহজেই অর্থলাভে সাহায্য করবেই

বাড়িতে আর্থিক অনটন? এদিকে পড়াশুনাও বিসর্জন দিয়ে ঢুকতে পারছেন না কোনও কোম্পানিতে? কিংবা সময কাটছে না আপনার? একদিকে সংসার অন্যদিকে অবসরও প্রচুর৷ কিন্তু ফুলটাইম জবে সমস্যা রয়েছে? এই অবস্থায় একমাত্র উপায় পার্টটাইম জব৷ এতে আপনার ঘরে লক্ষীও আসবে আবার আপনার পড়াশুনা বা সংসারে খারাপ প্রভবও পড়বে না৷ এমন কী কী কাজ করতে পারেন আপনি? দেখে নিন এমন কিছু কাজ যার চাহিদা এখন তুঙ্গে৷ অথচ বেশি সময়ও নেবে না আপনার৷

টিউশনি এবং কোচিং সেন্টার
ছাত্রাবস্থায় ছাত্রছাত্রী পড়ানো খুব আকর্ষণীয় পার্টটাইম জব। এতে একদিকে যেমন চাকরির নিয়োগ পরীক্ষার জন্য পুরনো পড়াগুলো ঝালাই হয়ে যায়; অন্যদিকে এমন জ্ঞানও অর্জিত হয়, কোনও কারণে যা আগে এড়িয়ে গিয়েছিলেন আপনি। ছাত্রছাত্রীদের যোগ্যাতা ও পাঠ্য বিষয়কে মাথায় রেখে করতে হবে টিউশনি। আর এখানে শিক্ষার্থীর শ্রেণী ভেদে বেতন হয় ভিন্ন। তবে এখন একটা টিউশনি করেও হাতখরচ চালানো যায়! আপনার বাড়িতেও খুলতে পারেন একটি কোচিং সেন্টার৷ তাতে আপনাকে বাড়ির বাইরেও যেতে হবে না৷ ঘরে বসেই টাকা রোদগার করতে পারবেন আপনি৷

ফ্রিল্যান্সিং
বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং অত্যন্ত জনপ্রিয় পার্টটাইম জব। ঘরে বসেই ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে বেশ মোটা টাকা উপার্জন করছেন অনেকে। ফ্রিল্যান্সিং কাজের মধ্যে রয়েছে সফটওয়্যার তৈরি এবং উন্নয়ন, ওয়েবসাইট তৈরি ও ডিজাইন, মোবাইল অ্যাপস, গেমস, অ্যাপ্লিকেশন প্লাটফর্ম, ভিওআইপি অ্যাপ্লিকেশন, ডাটা অ্যান্ট্রি, গ্রাফিক ডিজাইন, প্রি-প্রেস, ডিজিটাল ডিজাইন, সাপোর্ট সেবা, কাস্টমাইজড অ্যাপ্লিকেশন তৈরি, রক্ষণাবেক্ষণ ইত্যাদি ছাড়াও রয়েছে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এবং সোশ্যাল মার্কেটিংয়ের কাজ।

সুপার শপ
সুপার স্টোরের গ্রাহকসেবার জন্য নিয়োগ করা হয় শিক্ষিত ছেলেমেয়েদের। এই সুপার স্টোরের অধিকাংশ জবই হয় পার্টটাইম। সুপার স্টোরগুলোতে দুই ধরনের কাজ থাকে। প্রথমত, পণ্য বহন করা, দ্বিতীয়ত, গ্রাহক বা কাস্টমার কেয়ার। কাস্টমার কেয়ারদের মূল কাজ প্রডাক্ট সম্পর্কে গ্রাহকদের বোঝানো এবং পণ্য নির্ধারিত জায়গায় গুছিয়ে রাখা। এসব স্টোরে পাঁচ থেকে আট ঘণ্টা কাজ করার সময় নির্ধারিত থাকে।

কল সেন্টার
ইদানিং কল সেন্টারে শিক্ষার্থীরাই বেশি কাজ করছেন। আর এ ক্ষেত্রে প্রাধান্য পাচ্ছেন স্মার্ট ব্যক্তিত্ব, ইংরেজিতে দক্ষ, প্রমিত উচ্চারণ, ভালো কণ্ঠ ও যোগাযোগে অভিজ্ঞ শিক্ষার্থীরা।

ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট
দেশের আনাচে কানাচে বিভিন্ন ব্র্যান্ড প্রমোট করা, ক্যাম্পেইন কিংবা অনুষ্ঠানে সহায়তা করার জন্য ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট ফার্মগুলো স্মার্ট তরুণ-তরুণীদের চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়ে থাকে। ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কাজগুলো হয় দিন, সপ্তাহ কিংবা মাসভিত্তিক। ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টে শেখার অনেক কিছু আছে। বিভিন্ন দেশের, বিভিন্ন এলাকার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ে, ব্যবস্থাপনার মৌলিক ধারণা শেখা যায়, আরও শেখা যায় করপোরেট দুনিয়ার হালচাল।

বিজ্ঞাপনী সংস্থা
মার্ক টোয়েন বহুদিন আগে বলেছিলেন, বহু ছোট জিনিস বড় করে তোলা যায় শুধু বিজ্ঞাপনের দ্বারা। যারা ভবিষ্যতে বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করতে চান পার্টটাইম জব দিয়েই শুরু করে দিতে পারেন। কারণ, বিজ্ঞাপনের দুনিয়ায় পা রাখার জন্য শুধু পুঁথিগত বিদ্যাই যথেষ্ট নয়। বিজ্ঞাপন সংস্থাগুলো স্মার্ট, পজিটিভ এবং সৃষ্টিশীল তরুণ-তরুণীদের পছন্দ করে। বিজ্ঞাপনের ক্ষেত্রে উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়া সম্ভব। পড়াশুনার পাশাপাশি সৃজনশীল ও উতসাহী যেকোনও শিক্ষার্থী বিজ্ঞাপনী সংস্থায় কাজ করতে পারেন। কপিরাইটার, ক্লায়েন্ট সার্ভিস কিংবা ক্রিয়েটিভ ধারণা প্রদানের জন্য এখানে সৃজনশীল তরুণ-তরুণীদের জন্য রয়েছে বিশেষ সুযোগ।

গণমাধ্যম
গণমাধ্যম বা মিডিয়া বলতে বোঝায় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মাধ্যম। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে পার্টটাইম জবের আকর্ষণীয় ক্ষেত্র গণমাধ্যম। পত্রিকায় ফিচার লিখতে কিংবা সাংবাদিকতায় আগ্রহীরা বিভাগীয় সম্পাদক বা প্রধান প্রতিবেদকের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমে লেখালেখি শুরু করতে পারেন। কাজ করতে পারেন প্রদায়ক অথবা শিক্ষানবিস সাংবাদিক হিসেবেও। স্যাটেলাইট টেলিভিশন স্টেশনে উপস্থাপক, নিউজ প্রেজেন্টার প্রতিবেদক, স্ক্রিপ্ট রাইটার, সহকারী পরিচালক, প্রোডাকশন সহকারী, সহকারী আর্ট ডিরেক্টর হিসেবেও খণ্ডকালীন কাজ করা যায়। এফএম রেডিও স্টেশনে পার্টটাইম কাজ করাটা অনেক তরুণের স্বপ্ন। এফএম রেডিওগুলোতে পার্টটাইম জবের মধ্যে রয়েছে আর জে, উপস্থাপক ও প্রতিবেদক হিসেবে কাজ করা।

ফটোগ্রাফার
ফটোগ্রাফি এখন ট্রেন্ডি প্রফেশন৷ ফটো তেলার শখ থাকলে আপনিও নিজের ইচ্ছায় এই কাজ দিয়েই চালাতে পারেন নিজের খরচ৷ আপনার চেনাশোনা মানুষের জন্মদিন বিয়ে অন্নপ্রাশন প্রভৃতিতে ফটো তুলে টাকা রোজগার করতে পারেন আপনি৷ এতে আপনার শখও মিটবে টাকাও উপার্জন হবে৷

সেলাই
সেলাইয়ের কাজে দক্ষতা থাকলে ব্যবহার করুন নিজের প্রতিভাকে৷ নিত্যনতুন বুটিক খোলা হচ্ছে এখন নানা জায়গায়৷ আপনিও খুলতে পারেন একটি৷ নিত্যনতুন ডিজাইনের জামা কাপড় বানিয়ে বিক্রি করতে পারেন ঘরে বসেই৷

বিউটিসিয়ান
এখন বিউটিসিয়ান হতে পারলে আপনার অর্থ উপার্জন থেমে থাকবে না৷ বিয়ের কনে থেকে শুরু করে অতিথি সকলের মধ্যেই এখন সাজানোর লোকের চাহিদা রয়েছে৷ এক একদিনে সাজিয়ে বেশ ভালো রোজগার করতে পারেন আপনি৷ সূত্র : kolkata24x7.com

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*