ক্রিয়েটিভ আইটিতে সাংবাদিকদের আউটসোর্সিং কর্মশালার সার্টিফিকেট প্রদান

তারুণ্যলোক প্রতিবেদক

ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেডের উদ্যোগে প্রিন্ট, ব্রডকাস্ট ও অনলাইন  মিডিয়ার সাংবাদিকদের  দেড় মাসব্যাপী  ‘এসেনসিয়াল আইটি এন্ড আইসিটি ইউজারস ফর মিডিয়া জার্নালিস্ট’ শীর্ষক আউটসোর্সিং প্রশিক্ষণ কর্মশালার সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়েছে।
রাজধানীর ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেডের মিলনায়তনে গত সোমবার সন্ধ্যায় আনুষ্ঠানিকভাবে অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকদের হাতে এ কর্মশালার সার্টিফিকেট তুলে দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে প্রিন্ট, ব্রডকাস্ট ও অনলাই মিডিয়ায় কর্মরত ৩০ জন সাংবাদিক অংশগ্রহণ করেন। দেড়মাসব্যাপী এই কর্মশালায় ফ্রি-ল্যান্সিং, ইমেইল মার্কেটিং, ফেসবুকিং মার্কেটিং, ভিডিও মার্কেটিং গ্রাফিক ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন ইত্যাদি বিষয়ে শিক্ষা দেওয়া হয়।

12088588_1016514571733137_5567632349724467716_n12144714_1016514961733098_8793545225906210795_n12105816_10205275791356111_530186564843088242_n12109170_1016514751733119_4911140446048060732_n12143284_1016514965066431_8504073518232707949_n12144718_1016514758399785_4559568891284809397_n
12144718_1016514758399785_4559568891284809397_n12108064_1016514481733146_331018435236610075_n
অনুষ্ঠানে প্রধান অথিতি হিসেবে উপস্থিত থেকে অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকদের হাতে সার্টিফিকেট তুলে দেন বাংলাদেশ  কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি হিসেবে আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব হারুন অর রশিদ ও ক্রিয়েটিভ আইটির চেয়ারম্যান মো. মনির হোসেন।
12066009_1016514441733150_4358960861406459813_n12144737_1016514538399807_3135346704358577972_n
প্রধান অথিতির বক্তব্যে আশরাফুল ইসলাম বলেন,  দক্ষ মানবসম্পদ গঠনে ক্রিয়েটিভ আইটির এই উদ্যোগ প্রশংসার দাবিদার। গণমাধ্যমকর্মীদের তথ্যপযুক্তি জ্ঞান ও দক্ষতা বাড়াতে বিনামূল্যে এই আয়োজন করেছে ক্রিয়েটিভ আইটি লিমিটেড। এই সুন্দর উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। প্রতিদিনকার জীবনে ফেসবুক, ইমেইল, আউটসোর্সিং এই বিষয়গুলো সাংবাদিকদের অনেক প্রয়োজন হয়। ফ্রি-ল্যান্সিং, ইমেইল মার্কেটিং, ফেসবুকিং মার্কেটিং, ভিডিও মার্কেটিং জ্ঞান প্রত্যেকজন সাংবাদিকদের প্রয়োজন রয়েছে। এভাবে সাংবাদিকরা প্রযুক্তিগত শিক্ষায় প্রশিক্ষিত দেশের জন্য ভাল কিছু করতে পারবে। আর দেশও প্রযুক্তির দিকে এগিয়ে যাবে। গত ২০১২ সালে বাংলাদেশের ফ্রি-ল্যান্সিং খাতে ৩৪ মিলিয়ন ডলার ছিল তিন বছরে বেড়ে তা হয়েছে দিগুণ।  সুতরাং এই খাতের ভবিষৎ অনেক ভাল।

ক্রিয়েটিভ আইটির চেয়ারম্যান মনির হোসেন, ক্রিয়েটিভ আইটির মূল লক্ষ্য হল বেকার মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা তারই ধারাবাহিকতাই ক্রিয়েটিভ আইটি ২০১৪-১৫ সালে  নিজস্ব উদ্যোগে ও  সরকারের সহযোগিতা নিয়ে ফ্রি প্রশিক্ষণ দিয়ে অনেক তরুণ তরুণীদের সাবলম্বী করে তুলেছে। আউটসোর্সিং কিংবা লোকাল চাকুরী প্রদানের মাধ্যমে পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থা পরিবর্তন করেছে।

অংশগ্রহণকারী সাংবাদিকদের পক্ষে নতুনবার্তাডটকমের মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমার দেখা সেরা প্রতিষ্ঠান ক্রিয়েটিভ আইটি। ক্রিয়েটিভ আইটির প্রত্যেকটি কোর্সই অনেক যতœ সহকারে করানো হয়। বন্ধুভাবাপন্নভাবে ক্রিয়েটিভ আইটির সব শিক্ষক, স্টাফ তাদের দায়িত্ব পালন করেন। আমার মতে, ক্রিয়েটিভ আইটির প্রত্যক শিক্ষকই এক একজন মডেল। তাছাড়া  ক্রিয়েটিভ আইটি প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বমানের একটি  আইটি প্রতিষ্ঠান

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, গত মার্চ মাসে ক্রিয়েটিভ আইটি ঘোষিত সাংবাদিকদের বিনামূল্যে ফ্রিল্যান্সিং কোর্সের জন্য গণমাধ্যম থেকে প্রায় দুই শতাধিক আবেদন আসে। এর মধ্যে বাছাইকৃত ৩০ জন সাংবাদিককে এই প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণের সুযোগ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ পরবর্তী গত সোমবার তাদের হাতে সনদপত্র হস্তান্তর করে প্রতিষ্ঠানটি।

একই অনুষ্ঠানে ১৬ জন প্রতিবন্ধীকে গ্রাফিক্স ডিজাইন শেষে কর্মক্ষেত্রে প্রবেশের জন্য সনদপত্র দেওয়া হয়। এসব প্রতিবন্ধীদেরকেও সামাজিক দায়বদ্ধতার তহবিল (সিএসআর) থেকে বিনামূল্যে প্রশিক্ষণ দিয়ে নিজেদের প্রতিষ্ঠানেই চাকরি দিয়েছে ক্রিয়েটিভ আইটি।