গরুর হৃদপিণ্ডে বাঁচলো মানবশিশু

আশা ছেড়েই দিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। মন মানতে না চাইলেও খারাপ কিছু ঘটতে চলেছে তা বুঝতে পারছিলেন সাবেক ভূগোল শিক্ষিকা অ্যালেন প্রিটচার্ড। কারণ তার আট মাসের ছোট্ট ছেলে নোয়া যে বিরল জিনঘটিত রোগে আক্রান্ত। কিন্তু অ্যালানের মতো আশা ছেড়ে দেননি যুক্তরাজ্যের লিভারপুলের অ্যাল্ডার হে হাসপাতালের এক দল চিকিৎসক। গরুর হৃদযন্ত্রের অংশ শিশুটির হৃদযন্ত্রের সঙ্গে জোড়া লাগিয়ে চিকিৎসকেরা বাঁচালেন নোয়াকে।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, আট মাসের নোয়া বিরল জিনঘটিত সমস্যা ‘হোল্ট ওরাম সিনড্রম’-এ আক্রান্ত। লাখে এক জনের হয় হৃদযন্ত্রের এই সমস্যাটি। এই রোগে আক্রান্তদের হাতের হাড়ের গঠন অস্বাভাবিক হয়। সেই সঙ্গে হৃদযন্ত্রেরও সমস্যাও দেখা যায়। শেষ চেষ্টা হিসেবে নতুন একটি উপায়ের কথা মাথায় আসে লিভারপুলের ওই হাসপাতালের শল্য চিকিৎসকদের। গরুর হৃদপিণ্ডের একটি অংশ কেটে তা শিশুটির হৃদযন্ত্রে প্রতিস্থাপন করেন তারা।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, মানুষের হৃদযন্ত্রের সঙ্গে গরুর হৃদযন্ত্রের অনেকাংশে মিল থাকায় অস্ত্রপচারটি করতে সুবিধা হয় তাদের। তবে হাতের অপারেশনটি হওয়া এখনও বাকি।

এদিকে তার ছেলের হৃদযন্ত্রের অবস্থা এখন স্থিতিশীল এবং দ্রুতই সে সেরে উঠছে বলে জানিয়েছেন শিশুটির মা অ্যালেন। সূত্র: দ্য মিরর।