দ্রুত টাইপ করলে পড়ে যায় লেখার মান

কম্পিউটারে কতটা দ্রুত টাইপ করতে পারেন? খুব দ্রুত কী? আর তা নিয়ে নিশ্চয়ই বেশ আত্মসন্তুষ্টি অনুভব করেন। কিন্তু এই ঝোড়ো টাইপে আপনার নিজেরই ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে না তো?

একটা সময় বলা হত, পরীক্ষার হল ছাড়া অতি দ্রুত লিখতে যেও-না, হাতের লেখা খারাপ হবে। এখন স্কুল-কলেজ ছাড়া আর হাতে লেখার চল গিয়েছে কমে। সর্বত্রই কম্পিউটারের দাপট আর সেই মহাযন্ত্রে কে দ্রুত টাইপ করতে সক্ষম, তার উপর অনেক কিছুই নির্ভর করে, চাকরিও।

খুব দ্রুত লিখলে আঙুল অসাড় হয়ে যাওয়া, নার্ভের যন্ত্রণা বা রাইটার্স ক্র্যাম্প তো হয়ই। এসবই হল দৈহিক প্রভাব। কিন্তু দ্রুত লেখার কুপ্রভাবও রয়েছে। সাম্প্রতিক একটি মনস্তাত্ত্বিক গবেষণা বলছে, খুব দ্রুত লিখলে তার চাপ পড়ে মস্তিষ্কের উপর আর লেখার মান পড়ে যায়।

অবশ্য যাঁরা ডিকটেশন নেন বা নকল করেন, তাঁদের ক্ষেত্রে একথা খুব একটা খাটে না কারণ তাঁদের নিজে ভেবে লিখতে হচ্ছে না। তা ছাড়া যে কোনও লেখার ক্ষেত্রেই এমনটা হয়। সম্প্রতি একটি ব্রিটিশ মনস্তাত্ত্বিক জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণা রিপোর্ট বলছে, যেহেতু মৌলিক লেখার সময়ে মাথা একই সঙ্গে অনেকগুলি কাজ করে, তাই দ্রুত লেখার সময়ে লেখার মান খুব ভাল হয় না।

তাড়াহুড়ো করে লেখার সময়ে সচরাচর লেখকের মাথায় প্রথম যে শব্দ বা বাক্য আসে, সেটাই লেখা হয়। তাই মানোন্নয়নের জায়গা থাকে না।