লংকাবাংলা গ্রাহকদের জন্য নিয়ে এলো টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ড

তারুণ্যলোক প্রতিবেদক : লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেড এবং মাস্টারকার্ড  সোমবার (৬ জুন) দেশের গ্রাহকদের জন্য নতুন একটি ক্রেডিট কার্ড চালুর ঘোষণা দিয়েছে। লংকাবাংলা টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ডধারীরা মাস্টারকার্ডের ১২০০-এরও বেশি পার্টনার মার্চেন্টের নেটওয়ার্কে মূল্যছাড়সহ অসাধারণ কিছু সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এছাড়াও লংকাবাংলা এই নতুন কার্ডের আওতায় বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা দিতে তাদের পার্টনার নেটওয়ার্ককে আরও বিস্তৃত পরিসরে নিয়ে যাচ্ছে।
লংকাবাংলা টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ডের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী, উপব্যবস্থাপনা পরিচালক খাজা শাহরিয়ার এবং এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট ও রিটেল ফিন্যান্সের প্রধান খুরশেদ আলম; মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল ও ভাইস প্রেসিডেন্ট গীতাঙ্ক ডি দত্তসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য ঊর্দ্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘‘আমরা লংকাবাংলার পক্ষ থেকে সব সময়ই গ্রাহকদের সর্বোচ্চ সন্তুষ্টির জন্য বিস্তৃত পরিসরে সেবা দেওয়ার চেষ্টা করে থাকি, যাতে তাঁদের জীবন স্বাচ্ছন্দ্যময় হয়ে ওঠে। মাস্টারকার্ডের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ড চালু করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত ও গর্বিত। আমরা আশা করি, মাস্টারকার্ডের সাথে আমাদের এই অংশীদারিত্ব ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।’’
মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, ‘‘আমরা ধারাবাহিকভাবে আমাদের গ্রাহকদের পছন্দ ও চাহিদার আলোকে অত্যন্ত সুবিধাজনক ও সম্পূর্ণ নিরাপদ নেটওয়ার্কের আওতায় ব্যাপক সুযোগ-সুবিধা সংবলিত সর্বাধুনিক পণ্যের প্রচলন করে থাকি। দেশে আর্থিক সেবা প্রদানে একটি শীর্ষস্থানীয় ও বিশ্বাসযোগ্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেডের যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। বর্তমান দ্রুত গতিময় জীবনধারার যুগে গ্রাহকদের প্রয়োজন ও চাহিদা অনুযায়ী আমরা লংকাবাংলার সহযোগিতায় টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ডের মতো একটি কার্ড চালু করতে পেরে অত্যন্ত আনন্দিত।’’
নতুন এই লংকাবাংলা টাইটেনিয়াম মাস্টারকার্ড ক্রেডিট কার্ড ব্যবহারে গ্রাহকদের জন্য রয়েছে নানা ধরনের সুযোগ-সুবিধার পরিপূর্ণ এক প্যাকেজ। এই কার্ডধারীরা কার্ড নেওয়ার প্রথম বছরে কমপ্লিমেন্টারি হিসেবে বিনামূল্যে বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পাবেন। এর মধ্যে রয়েছে জীবনবীমার সুবিধাও। সে অনুযায়ী কার্ড নেওয়ার পর কোনো গ্রাহকের দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু ঘটলে তাঁর ওয়ারিশগণ ৫ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ পাবেন। টাইটেনিয়াম কার্ডধারীরা কক্সবাজার ও সিলেটের শীর্ষস্থানীয় হোটেল-রিসোর্টগুলোতে বাই-ওয়ান-গেট-ওয়ান ফ্রি অর্থাৎ হোটেলে অতিরিক্ত রাত বিনামূল্যে থাকার সুবিধাও উপভোগ করতে পারবেন। এ ছাড়া গ্রাহকেরা লংকাবাংলার ইজি-পে ইন্সটলমেন্ট স্কিমের আওতায় শূন্য শতাংশ (০%) সুদে ১২ মাস পর্যন্ত টাকা পরিশোধের সুযোগ পাবেন, বছরব্যাপী ক্যাশ-ব্যাক সুবিধা এবং বছরে ১২টি লেনদেন করলে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে কার্ড নবায়নের সুবিধাও পাবেন।

উল্লেখ্য, লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেড বহুজাতিক সহযোগিতায় ১৯৯৭ সালে একটি যৌথ মূলধনী আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রা শুরু করে। এর আগে প্রতিষ্ঠানটি ফিন্যান্সিয়াল ইনস্টিটিউশন অ্যাক্ট বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইন-১৯৯৩ এর আওতায় বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছ থেকে লাইসেন্স পায়। বর্তমানে লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেড দেশের আর্থিক খাতে করপোরেট ফিন্যান্সিয়াল ও অ্যাডভাইজরি সার্ভিস বা আর্থিক ও পরামর্শ সেবা প্রদান, রিটেইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস, এসএমই ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস বা এসএমই খাতে অর্থায়ন, স্টক ব্রোকিং এবং ওয়েলথ ম্যানেজমেন্ট সার্ভিস বা সম্পদ ব্যবস্থাপনাসহ সমন্বিত আর্থিক সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে অন্যতম নেতৃস্থানীয় কোম্পানি। লংকাবাংলা ফিন্যান্স লিমিটেড হলো দেশের একমাত্র আর্থিক প্রতিষ্ঠান, যেটি গ্রাহকদের বৃহত্তর স্বার্থে বিস্তৃত পরিসরে পর্যাপ্ত আর্থিক পণ্য ও সেবা প্রচলনের পাশাপাশি ক্রেডিট কার্ড চালু এবং দেশের বিভিন্ন ব্যাংককে থার্ড পার্টি কার্ড প্রসেসিং সার্ভিসও দিয়ে চলেছে। লংকাবাংলা ফিন্যান্স ২০০৯ সাল থেকে গভর্নমেন্ট সিকিউরিটিজের প্রাইমারি ডিলার হিসেবেও কাজ করে আসছে। এ ছাড়াও লংকাবাংলা ফিন্যান্স ২০০৬ সাল থেকে দেশের দুটি শেয়ারবাজার যথাক্রমে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) তালিকাভূক্ত কোম্পানি হিসেবে রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*