প্রকৌশলী মো. মেহেদী হাসান : সৃজনশীল সমাজ নির্মাণে স্বপ্নবান তরুণ উদ্যোক্তা

প্রকৌশলী মো: মেহেদী হাসান, স্বাধীনতা পরবর্তী প্রজন্মের তরুন ও সফল উদ্যোক্তা ব্যবসায়ী; তবে বৈশিষ্ট্য ও বিশেষত্বে পরিপার্শ্বের আর ১০ জনের চেয়ে আলাদা; স্বাতন্ত্র্যবোধে উজ্জীবিত। মেহেদী হাসান অমিকন গ্রুপে অব ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সি.ই.ও)। দেশপ্রেম ও দেশাত্মবোধের অনুরণণ এই তারুণ্যের মাঝে। জনাব মেহেদী হাসান সম্প্রতি ২০১৭-২০২০ সাল মেয়াদে কমনওয়েলথ অব ইন্ডিপেডেন্ট স্ট্যাটস-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। ইতোপূর্বেও তিনি আন্তর্জাতিক এই সংগঠনটির পরিচালক হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন।
MD-AWARDবর্তমানে তিনি দ্য ফার্মাস ব্যাংক লিমিটেড, অ্যাপোলো হাসপিটাল লিমিটেড এবং বাংলাদেশ জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থা ‘বাংলাপ্রকাশ’ এবং ‘শিক্ষা ও ক্যারিয়ার বিষয়ক ম্যাগাজিন ‘এডুকেশন টুডে’র প্রকাশক ও প্রধান সম্পাদক।
তীক্ষধিসম্পন্ন এই উদ্যমী একের পর এক উদ্যোগ নিচ্ছেন এবং সাফল্য পেয়ে যাচ্ছেন। পারিবারিক ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানটিকে তিনি সুপ্রতিষ্ঠিত করেছেন এক ‘কর্পোরেট স্ট্যাটাসে’। এগিয়ে চলছেন মেহেদী হাসান তাঁর লক্ষ্যপানে; একা নন মোটেও; আরও সহস্রজন রয়েছে তাঁর অমিকন সাম্রাজ্যে। যারা এদেশের মানুষ, এই সমাজের এবং আমাদের কাছে দূরের আত্মীয়-প্রতিবেশি। এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ; দেশের মানুষ। এখানে নেতৃত্বে আছেন বাংলার এক দুর্বার দামাল তারুণ্য মোঃ মেহেদী হাসান।
bp-worldwideতাঁর সাফল্যের পেছনে রয়েছে শিক্ষক পিতার জীবনাদর্শ; লক্ষ্য স্থির করা এবং অভীষ্ঠ লক্ষ্যপানে এগিয়ে চলার মতো ‘এক সমৃদ্ধ দৃষ্টিভঙ্গি’। মানবসন্তান হিসেবে বোধ ও উপলব্ধির রসদে বেড়ে উঠা এবং জীবনের গড়াপেটার জন্য যা যা প্রয়োজন এর সবকিছুই রয়েছে ‘এক সমৃদ্ধ দৃষ্টিভঙ্গি’র মাঝে। মেহেদী হাসানের পিতা লেকচার পাবলিকেশন্স লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ শহিদুল ইসলাম; যিনি মানুষ গড়ার কারিগর। তো পাঠক, পরিচিত হওয়া যাক তারুণ্যের উজ্জ্বল প্রতিনিধি মেহেদী হাসানের সঙ্গে তারুণ্যলোকের বিশেষ প্রতিনিধি নূরউদ্দিন রানা

পরিচয় বৃত্তান্ত
মেহেদী হাসান আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (এআইইউবি) থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে গ্রাজুয়েশন লাভ করেন। পারিবারিক ব্যবসায় পরিমন্ডলে বেড়ে উঠা এই তরুণ শিক্ষাজীবন সমাপ্তির পর নিজেকে পৈত্রিক ব্যবসায় সূত্রে প্রকাশনা শিল্পের সঙ্গে জড়িয়ে নেন। এরপর দীর্ঘ প্রায় এক যুগ ব্যবসায়িক বিনিয়োগ পরিকল্পনায় ও ব্যবস্থাপনা সক্ষমতায় পারিবারিক প্রতিষ্ঠানটিকে কর্পোরেট কালচারে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন; যা আজ সুপরিচিতি পেয়েছে ‘অমিকন গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ’ নামে। তাঁর উপলব্ধির মনোজগত ঘিরে নেই কেবল অর্থ উপার্জনের বাসনা; বরং মানবতার জয়জয়কার, গ্রাহক-সন্তুষ্টি অর্জন এবং সম্মিলিতভাবে ভালোভাবে বেঁচে থাকার অনুরণণ তাঁর প্রাণ-মাঝে।
MD-2জ্ঞানভিত্তিক সৃজনশীল সমাজ নির্মাণ প্রয়াসে লেকচার পাবলিকেশন্স নামে যে প্রতিষ্ঠানটিকে গড়ে তুলেছিলেন পিতা; সুযোগ্য পুত্র তাঁর সেই প্রতিষ্ঠানটিকে বহুমাত্রায় বহুধারায় বিস্তৃত করে চলেছেন। শুধু একাডেমিক পুস্তক প্রকাশনার সংকীর্ণ বৃত্ত থেকে বেরিয়ে সৃজনশীল প্রকাশনার এক নতুন ভুবন গড়েছেন তিনি ‘বাংলাপ্রকাশ’ নামে। নতুন নতুন প্রতিষ্ঠান গড়া ও কর্মসংস্থানের সৃৃষ্টির নিরলস প্রয়াসে বিনিয়োগ সম্প্রসারণ করেছেন পেপার, স্টিল, রিয়েল এস্টেট, এগ্রো ইন্ডাস্ট্রি, মিডিয়া ও আইসিটি সেক্টরে। কোয়ালিটি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ক্যাটাগরিতে আইএসও সার্টিফিকেশন‘সহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে পেয়েছে বহু স্বীকৃতি ও সম্মাননা পুরস্কার।
প্রকৌশলী মোঃ মেহেদী হাসান বর্তমানে লেকচার পাবলিকেশন্স লিমিটেড, বাংলাপ্রকাশ ও অমিকন গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন। এডুকেশন টুডে নামে শিক্ষা ও ক্যারিয়ার বিষয়ক একটি পাক্ষিক ম্যাগাজিন সম্পাদনা করছেন সামাজিক দায়বোধে উদ্দীপ্ত সফল এই তরুণ উদ্যোক্তা। এছাড়া ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান নিউরন পাবলিকেশন্স, প্রিমিয়ার প্রিন্টিং প্রেস ও অমিকন ডিস্ট্রিবিউশনের সত্ত্বাধিকারী। তিনি জাইম এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, গোমতী পোল্ট্রি অ্যান্ড হ্যাচারী লিমিটেড, অমিকন ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড, অমিকন পাল্প অ্যান্ড পেপার মিলস লিমিটেড, অমিকন এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালক। তিনি এফবিসিসিআই ও ডিসিসিআই’র সদস্য। তাঁর জন্ম কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলার ইসলামপুর গ্রামে; ১৯৮৪ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর। পড়াশোনা ও বেড়ে ওঠার পুরোটা সময় কেটেছে রাজধানী ঢাকায়। এ কে হাই স্কুল ও ঢাকা কলেজ থেকে এসএসসি ও এইচএসসি পাশের পর তিনি আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (এআইইউবি) থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে গ্রাজুয়েশন লাভ করেন।

পুরস্কার ও সম্মাননা
MD-BIRTHDAYচৌকস ও উৎসর্গীত চেতনার ন্যায়নিষ্ঠ ও সংগ্রামশীল এই তরুণ ব্যবসায়ী অত্যন্ত স্বপ্নবান এবং স্বপ্ননির্মাণ প্রয়াসে দৃঢ়প্রত্যয়ী। কর্মময় জীবন ও অর্জিত সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি পেয়েছেন ন্যাশনাল এডুকেশন অ্যাওয়ার্ড ২০০৭, চিল্ড্রেন অ্যান্ড ওম্যান ভিশন ফাউন্ডেশন কর্তৃক গোল্ড মেডেল ২০০৮, ফকির লালন শাহ গোল্ড মেডেল ২০০৯ এবং হিমালয়া বেস্ট বিজনেস এন্টারপ্রেনারস অ্যাওয়ার্ড ২০১০। আন্তর্জাতিক অঙ্গন থেকে পেয়েছেন ইন্টারন্যাশনাল সেঞ্চুরি কোয়ালিটি ইরা অ্যাওয়ার্ড ২০১৪, বেস্ট এন্টারপ্রাইজ অ্যাওয়ার্ড ২০১৫, ইউরোপীয়ান অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট প্রাকটিস ২০১৬, দ্য গ্রিন ইরা অ্যাওয়ার্ড ফর সাসটেইনেবিলিটি অ্যাওয়ার্ড ২০১৭ এবং সম্প্রতি এন্টারন্যাশনাল স্টার ফর লিডারশিপ ইন কোয়ালিটি অ্যাওয়ার্ড ২০১৭। সম্প্রতি ২০১৭-২০২০ সাল মেয়াদে কমনওয়েলথ অব ইন্ডিপেডেন্ট স্ট্যাটস-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক নির্বাচিত হয়েছেন। ইতোপূর্বেও তিনি আন্তর্জাতিক এই সংগঠনটির পরিচালক হিসেবে নিযুক্ত ছিলেন।

CHESS-CHAMPIONSHIP-2016

বাংলাপ্রকাশ চেতনার গভীরে লালিত এক স্বপ্নবৃক্ষ

‘পশুপাখি জন্মে পশুপাখি, তৃণলতা সহজেই তৃণলতা কিন্তু মানুষ প্রাণপণ চেষ্টায় তবেই মানুষ’- এই শব্দমালাই প্রকাশ করে মানবশিশুকে মানুষ হয়ে উঠবার প্রাণান্ত প্রয়াস চালিয়ে যেতে হয় জীবনভর। শিক্ষক পিতার কাছ থেকে এমন শিক্ষাই পেয়েছিলেন প্রকৌশলী মো: মেহেদী হাসান। ফলে পরিণত বয়সে ব্যবসায়ী, শিল্পপতি হিসেবেও তিনি হয়ে উঠেছেন আর ১০ জন থেকে ব্যতিক্রমী; স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন। শিক্ষক পিতার জীবনাদর্শ এবং আদেশ, উপদেশ ও গ্রহণ-বর্জনের শিক্ষায় ‘এক সমৃদ্ধ দৃষ্টিভঙ্গি’র অধিকারী হয়ে উঠেন মেহেদী হাসান।
0000ফলে ২০০৬ সালে শিক্ষাসমাপ্তির পর পিতার গড়া একাডেমিক প্রকাশনায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানটিকে ব্যবসায়ের সংকীর্ণ বৃত্তের বাইরে অনেকটা যেন মুক্তাঙ্গনে নিয়ে আসেন প্রকৌশলী মেহেদী হাসান। ২০০৭ সালের ১ এপ্রিল আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে ‘বাংলাপ্রকাশ’ নামে সৃজনশীল প্রকাশনার এক নবধারার সূচনা করেন এই উদ্যোক্তা তরুণ। পরিকল্পিত পদক্ষেপে, সুনির্বাচিত বিষয়-বিন্যাসে বাংলাপ্রকাশ থেকে এরপর বেরিয়েছে নবীন-প্রবীণ ও বিদগ্ধজনের লিখিত, সৃজিত বহু মূল্যবান গ্রন্থ। প্রকাশনার মান ও গুণ বিচারে সে-সব গ্রন্থের বেশ ক’টি পেয়েছে স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনের স্বীকৃতি। সৃষ্টিশীল কর্মের স্বীকৃতি পেয়েছেন মেহেদী হাসান নিজেও।
প্রিয় পাঠক, এবার পরিচিত হওয়া যাক, বাংলাপ্রকাশ এবং এর সৃজিত গ্রন্থরাজির সঙ্গে; বাংলার দামাল তারুণ্য উদ্যোক্তা ব্যবসায়ী মেহেদী হাসানের চেতনার গভীরে লালিত স্বপ্নবৃক্ষের ছায়ায় কতকটা প্রশান্তি খোঁজার চেষ্টা করা যাক। বাংলাপ্রকাশ-এর গ্রন্থরাজির কোন কোনটি হয়তো হয়ে উঠবে আপনার অবসরের সঙ্গী; একান্ত উপকারী বন্ধু-স্বজন ।

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*