চা-এ চুল তাজা

সকাল চা দিয়ে শুরু হয় না এমন মানুষ বোধ হয় হাতে গোনা৷ লাল চা হোক বা দুধ চা, অথবা গ্রিন টি, মনে চনমনে ভাব আনতে চায়ের গন্ধটুকুই যেন অনেকটা কাজ করে দেয়৷ আর চায়ে চুমুক শরীরকেও করে তোলে ঝরঝরে৷ এই চা বেশি পান করলে যেমন ঝামেলার অন্ত নেই, তেমনই কিন্তু এই চা-ই পারে অনেক সমস্যার সমাধান করতে৷ অনেক উপকারেও লাগে৷ একনজরে সেই সব কিছু…

১. অনেকেই গ্রিন টি পছন্দ করেন৷ এই গ্রিন টি-তে থাকা anti-oxidant শরীরেকোষে অক্সিজেন চলাচল বাড়িয়ে এনার্জির পরিমাণ অনেকটাই বৃদ্ধি করে৷

২. হৃদরোগ থেকে বয়সজনিত রোগের ঝুঁকি এক কাপ চায়ে নাকি অনেকটাই কমে যেতে পারে৷

৩. তবে, ঈষদুষ্ণ চা পান করা উচিত৷ নিয়মিত চা পান করলে নাকি পারকিনসন বা অ্যালজাইমার্স রোগের ঝুঁকিও অনেকটা কমে৷

৪. শরীরের দূষিত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে গ্রিন টি, যার ফলে এতে শরীর সুস্থ থাকে এবং চুল ঝরাও কিছুটা কমে যায়৷

৫. অনেকে আবার চুলের জন্য হেনার প্যাক তৈরি করে তাতে চায়ের লিকার মিশিয়ে দেন৷ এতে চুলের রংও সুন্দর হয়৷

৬. ক্যানসার কমাতেও নাকি সাহায্য করে চা৷ গবেষণার তথ্য অনুযায়ী, চা পাতার নির্যাসের সঙ্গে ক্যাডমিয়াম সালফেট সহ সোডিয়াম সালফাইড যোগ করে একটি উপাদান তৈরি হবে৷ যেখান থেকে তৈরি করা হবে কণাগুলিকে৷আর, সেই কণাগুলিই পরবর্তীকালে ফুসফুসকে ক্যানসার সেল মুক্ত করতে সাহায্য করবে৷ চা পাতা দিয়ে তৈরি এই প্রক্রিয়াটি ক্যামিক্যাল পদ্ধতির থেকে অনেক বেশি সহজ৷ তাই, গবেষকরা এই সহজ পদ্ধতির উপরেই গুরুত্ব আরোপ করছেন৷

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*