কোহলির জন্যই বিশ্বকাপ জিতবে না ভারত!

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারতের ক্রিকেটপ্রেমীদের আলোচনায় এখন যতই মুম্বই-কেকেআর-আরসিবি দখল করে থাকুক না কেন, দিন যতই এগিয়ে আসছে খুব স্বাভাবিক নিয়মেই ক্রিকেটের মহারণ নিয়ে তর্ক-বিতর্ক সেই স্থান দখল করে নিচ্ছে। আর এই ধরণের আলোচনায় কখনো অংশ নিচ্ছেন সাবেক তারকারা। তো কখনও আবার ক্রিকেট বিশারদরা। এবার সেই তর্কে যোগ দিলেন ভারতের এক জনপ্রিয় জ্যোতিষীও।

মুম্বইয়ের এই জনপ্রিয় জ্যোতিষী হলেন গ্রিনস্টোন লোবো। কে এই লোবো? ক্রিকেট জগতের সঙ্গে তার যোগাযোগ ভালোরকম। এর আগেও বহু টুর্নামেন্ট শুরুর আগে জ্যোতিষ বিদ্যার বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন তিনি। বেশ কয়েকবার তার করা ভবিষ্যদ্বাণী মিলেও গেছে। এমনকি বিশ্বকাপের আসরেও তাকে নবাগত বলা যাবে না। কারণ ২০১১ সালের বিশ্বকাপ ও ২০১৫-র বিশ্বকাপে কে চ্যাম্পিয়ন হবে সেই গণনাও মিলিয়ে দিয়েছিলেন নির্ভুলভাবে। সেই লোবাই যখন ভবিষ্যদ্বাণী করছেন তখন একেবারে উড়িয়ে দিতে পারছে না আপামর ক্রিকেট দুনিয়া।

কী বলছেন লোবো ২০১৯-এর ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ নিয়ে? গণনা করে ভারতের বিশ্বকাপ জয় নিয়ে তিনি যা জানিয়েছেন, এককথায় তা হলো- ‘মুশকিল হি নেহি, না মুমকিন হ্যায়’। অর্থাৎ জ্যোতিষ মতে এবারে শিকে ছিঁড়ছে না বিরাট কোহলির।

সম্প্রতি ‘হাউজ দ্যাট’ নামক একটি বই প্রকাশ করেছেন লোবো। সেই বইপ্রকাশ অনুষ্ঠানেই এই ‘বোমা’টি ফাটিয়েছেন তিনি। লোবোর বইপ্রকাশ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক দিলীপ বেঙ্গসরকারও। তার উপস্থিতিতেই লোবো এমন ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন। এতটা পড়ে অনেকেই হয়ত রে রে করে উঠতে পারেন। বলতেই পারেন, এত ব্যালেন্সড টিম, কোহলির ফর্ম… কোনো কিছুই কি কাজে আসবে না? কিন্তু কেন? উত্তরটা ওই অনুষ্ঠানেই জানিয়েছে দিয়েছেন লোবো। বলেছেন, এর মূল বাধা হলো বিরাট কোহলির জন্ম সাল! বিরাট কোহলির জন্ম সালটা ১৯৮৬ কিংবা ১৯৮৭ হলে হয়তো সমস্যা ছিল না। কিন্তু ১৯৮৮ সাল হয়েই যত গোলমাল হয়েছে। এই বছরের জন্ম গ্রহণকারী কারও জন্যই বছরটা শুভ নয়।

এই বিষয়ে কোহলির ছেলেবেলার কোচ রাজকুমার শর্মাকেও ফোন করেছিলেন বলে জানালেন লোবো। তিনি বলেন, ব্যাপারটা তাকে জানাতে আমার বেশ কষ্টই হচ্ছিল। সব শুনে প্রয়োজনে অধিনায়ক বদল করে এই সমস্যার সমাধান করা যায় কি না, তাও লোবোকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন রাজকুমার শর্মা। যে প্রশ্নটা ঘুরপাক খাচ্ছে সব ক্রিকেট প্রেমীদের মনেই।

উপায় একটা রয়েছে। ভবিষ্যৎবাণীর সাথে সাথে তার প্রতিকারেরও রাস্তা বাতলালেন লোবো। তিনি এই বাধা দূরীকরণের জন্য মহেন্দ্র সিং ধোনিকে দল থেকে বাদ দিতে বলেছেন। লোবো বলেছেন, আমরা আরো একবার বিশ্বকাপ জিততে পারি। সেক্ষেত্রে ধোনিকে বাদ দিতে হবে। যদিও লোবো বলেছেন যে তার মনে ধোনির জন্য অনেক সম্মান রয়েছে। তিনি বলেন, ধোনির সঙ্গে সবসময়ই ভাগ্য সহায় থেকেছে কিন্তু এবার তাকে মিস করতে দেখা যাচ্ছে।

জন্মছক অনুযায়ী রবি শাস্ত্রীর সময়টাও ভালো, কিন্তু কোচ হিসাবে তিনি কখনো বিশ্বকাপ জিতবেন না বলে জানা যাচ্ছে গণনায়। তবে বিশ্বকাপ জয়ের আশা না থাকলেও পাকিস্তান ম্যাচটি কিন্তু ভারতই জিতবে বলে জানাচ্ছে জ্যোতিষশাস্ত্র।