কানে শেষ মুহূর্তে ঢুকলো পিট-ডিক্যাপ্রিওর ছবি

বিনোদন ডেস্ক : আশা আর আশঙ্কার দোলাচলে ছিল কোয়েন্টিন টারান্টিনোর ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন… হলিউড’। তার ভক্তরা আশায় ছিলেন, কান চলচ্চিত্র উৎসবে এটি শেষ পর্যন্ত যুক্ত হবে। কিন্তু এ নিয়ে আয়োজকদের আশঙ্কা ছিল। তবে আশা ছাড়েননি তারা। অবশেষে সব সংশয় কাটিয়ে শেষ মুহূর্তে কানের ৭২তম আসরের প্রতিযোগিতা বিভাগে ঢুকলো ছবিটি। এজন্য ৫৬ বছর বয়সী এই মার্কিন নির্মাতাকে দিনরাত সম্পাদনার টেবিলে কাটাতে হয়েছে।

কোয়েন্টিন টারান্টিনোর নতুন ছবিটি স্বর্ণ পামের জন্য লড়বে। তবে কানের সর্বোচ্চ এই পুরস্কার একবার জিতেছেন তিনি। ১৯৯৪ সালের কান উৎসবে তার ‘পাল্প ফিকশন’ প্রতিযোগিতা বিভাগে সেরা হয়। এর ২৫ বছর পূর্তির সময় টারান্টিনোর ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন… হলিউড’ শামিল হচ্ছে পাম দ’রের দৌড়ে। এতে অভিনয় করেছেন হলিউডের দুই হেভিওয়েট তারকা ব্র্যাড পিট ও লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও। এছাড়া আছেন অস্ট্রেলীয় অভিনেত্রী মার্গট রোবি।

টারান্টিনোর ছবি প্রসঙ্গে কান উৎসবের পরিচালক থিয়েরি ফ্রেমো বৃহস্পতিবার (২ মে) এক বিবৃতিতে বলেন, “আমাদের আশঙ্কা ছিল, ছবিটির কাজ বোধহয় জুলাইয়ের আগে শেষ হবে না! তবে কোয়েন্টিন টারান্টিনো চার মাস এডিটিং রুম থেকেই বের হননি! তিনি সত্যিকার অর্থেই কানের জন্য আন্তরিকতা, কর্তব্যপরায়ণ ও সময়নিষ্ঠ মনোভাব দেখিয়েছেন। ‘ইংলোরিয়াস বাস্টার্ডস’ (২০০৯) ছবির পর আবারও কানসৈকতে ফিরছেন তিনি।

তার ‘পাল্প ফিকশন’ ছবির স্বর্ণ পাম জয়ের ২৫ বছর পূর্তি হচ্ছে এবার। ৩৫ মিলিমিটারে নির্মিত নতুন চলচ্চিত্রটিকে বলা যেতে পারে তার শৈশবের হলিউডের প্রতি একটি ভালোবাসার চিঠি, ১৯৬৯ সালের রকসংগীত ট্যুর ও সামগ্রিকভাবে সিনেমার প্রতি কবিতা। এডিটিং রুমে দিনরাত কাটানো কোয়েন্টিন ও তার ক্রুদের ধন্যবাদ জানাই। বিশেষ ধন্যবাদ সনি পিকচার্স টিমকে। তারাই ছবিটিকে কানে রাখা সম্ভব করেছেন।”

দক্ষিণ ফরাসি উপকূলের শহরে উৎসবের ৭২তম আসরের সবচেয়ে বড় আকর্ষণ হিসেবে থাকছে ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন… হলিউড’। যদিও ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসের শসলিজেতে গত ১৮ এপ্রিল এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষিত প্রতিযোগিতা বিভাগের ১৯টি ছবির তালিকায় এটি না দেখে হতাশ হন চলচ্চিত্রানুরাগীরা।

এদিকে ২০১২ সালে ‘ব্লু ইজ দ্য ওয়ার্মেস্ট কালার’ ছবির জন্য স্বর্ণ পাম জেতার ছয় বছর পর কানসৈকতে ফিরছেন তিউনিসিয়ান বংশোদ্ভুত ফরাসি নির্মাতা আবদেললতিফ কেশিশ। তার নতুন ছবি ‘মেকতুব, মাই লাভ: ইন্টারমেজো’ স্থান পেয়েছে প্রতিযোগিতা বিভাগে।

আবদেললতিফ কেশিশের নতুন ছবি প্রসঙ্গে থিয়েরি ফ্রেমোর বক্তব্য, “গত বৃহস্পতিবার (২৫ এপ্রিল) ছবিটি দেখেছি। এখনও এর এডিটিং চলছে। পরিচালক জানিয়েছেন, এর ব্যাপ্তি হবে চার ঘণ্টা। এটি থাকবে উৎসবের শেষ দিকে। ফলে যথাসময়ে ডিসিপি চলে আসবে। নব্বই দশকের ফরাসি তরুণদের প্রেমময় জীবনের অসাধারণ প্রতিকৃতি বলা যায় এই ছবিকে। এটি হলো তার ‘মেকতুব, মাই লাভ: কান্তো উনো’র সিক্যুয়েল।”

মিডনাইট স্ক্রিনিংয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার লি ওন-তায়ে পরিচালিত ‘দ্য গ্যাংস্টার, দ্য কপ, দ্য ডেভিল’ ছবির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ফরাসি নির্মাতা গ্যাসপার নো’র ‘লুক্স এতেরনা’।

আঁ সার্তে রিগার বিভাগে যোগ করা হয়েছে ইতালির লরেঞ্জো মাত্তোত্তির অ্যানিমেটেড ছবি ‘দ্য ফেমাস ইনভেশন অব বিয়ারস ইন সিসিলি’, রুশ নারী নির্মাতা লারিসা সাদিলোভার ‘ওয়ান্স ইন ত্রুবচেস্ক’।

স্পেশাল স্ক্রিনিংয়ে যুক্ত হয়েছে মেক্সিকান অভিনেতা গায়েল গার্সিয়া বার্নাল পরিচালিত দ্বিতীয় ছবি ‘চিকোয়ারোতেস’, চিলির পাত্রিসিও গাজম্যানের ‘দ্য করডিলেরা অব ড্রিমস’, লেইলা কনারসের ‘আইস অন ফায়ার’, আমেরিকার ড্যান ক্রাউস পরিচালিত ‘ফাইভবি’। এর মধ্যে লেইলা কনারসের জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে প্রামাণ্যচিত্র ‘দ্য ইলেভেন্থ আওয়ার’ ২০০৭ সালে দেখানো হয় কানে। সেটির মতো ‘আইস অন ফায়ার’ও প্রযোজনা করেছেন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও।

মার্কিন নির্মাতা জিম জারমাশের জম্বি কমেডি ‘দ্য ডেড ডোন্ট ডাই’ প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে ‘সিনেমার অলিম্পিক’ হিসেবে পরিচিত কান উৎসবের উদ্বোধন হবে আগামী ১৪ মে। কানসৈকতে এবারের উৎসব চলবে ২৫ মে পর্যন্ত। প্রয়াত নারী নির্মাতা আনিয়েস ভারদার প্রথম ছবির শুটিংয়ে তোলা একটি স্থিরচিত্র নিয়ে সাজানো হয়েছে এবারের আয়োজনের অফিসিয়াল পোস্টার।