শেষ বলে নাটকীয়তা, ১ রানে জিতে চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই

স্পোর্টস ডেস্ক : এক বলে দরকার ছিল ২ রান। কিন্তু মালিঙ্গার সেই শেষ বলেই এলবিডব্লু আউট হয়ে গেলেন শার্দূল ঠাকুর। ১ রানে জিতে আইপিএল ফাইনালে চেন্নাইকে হারানোর হ্যাটট্রিক করে ফেলল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। রোববার আইপিএল ফাইনালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মুম্বই অধিনায়ক রোহিত শর্মা। এমএস ধোনি অবশ্য টস হেরে জানিয়ে দেন তিনি প্রথমে ফিল্ডিংই করতে চেয়েছিলেন। ফাইনালের জন্য দলে কোনো পরিবর্তন আনেনি চেন্নাই। অন্যদিকে মুম্বই একটি মাত্র পরিবর্তন করেছিল দলে।

জয়ন্ত যাদবের জায়গায় প্রথম দলে জায়গা দেয়া হয়েছিল ম্যাকক্লেনাঘানকে। আইপিএলের সবচেয়ে সফল দুই দল আবার মুখোমুখি। এ বার লড়াই ফাইনালের। এই নিয়ে এই মরসুমে চারবার। প্রথম তিনবারই জয়ের পতাকা উড়িয়েছে রোহিত শর্মা অ্যান্ড ব্রিগেড। শেষ বেলায় সব থেকে বড় মঞ্চে বদলা নিতে পারবে কিনা মহেন্দ্র সিং ধোনি অ্যান্ড কোং,তার অপেক্ষায় ছিল গোটা ভারত। কিন্তু শেষ হাসি হাসল মুম্বই। এই নিয়ে চারবার এই টইরফি জিতে নিল তারা।

শুক্রবার বিশাখাপত্তনমে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দিল্লি ক্যাপিটালসকে হারিয়ে ফাইনালের দরজা খুলেছিল চেন্নাই সুপার কিংস। তার আগে প্রথম কোয়ালিফায়ারে এই চেন্নাইকে হারিয়েই ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছিল মুম্বাই। মুম্বইয়ের সামনে পজিটিভ দিক ছিল চারবার ফাইনালে পৌঁছে তিনবারই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। তার মধ্যে দুটো চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে ২০১৩ ও ২০১৫তে। তার সঙ্গে যুক্ত হয়ে গেল ২০১৯-ও। রবিবার হায়দ্রাবাদে আইপিএল ২০১৯এর সব থেকে বড় দুই শত্রু শিবিরের লড়াই গড়াল শেষ বল পর্যন্ত। মুম্বই চার দিন বিশ্রাম নিয়ে ফাইনালে খেলতে নেমেছিল তরতাজা হয়েই। চেন্নাইয়ের সেখানে ক্লান্তি বাধা হয়ে দাঁড়ানোর কথা থাকলেও শেষ বল পর্যন্ত লড়াই চালালেন ধোনিরা। একটি ম্যাচ বেশিও খেলতে হয়েছিল তাদের।

শুরুটা ভালোই করে দিয়েছিলেন মুম্বইয়ের দুই ওপেনার কুইন্টন ডে কক ও রোহিত শর্মা। কিন্তু প্রথমে ব্যাট নিয়ে যেটা ভেবেছিলেন রোহিত শর্মা সেটা হল না। দুই ওপেনার শক্ত ভিত তৈরি করে দিয়ে যেতে পারলেন না। ১৪ বলে ১৫ রান করে রোহিত ও ১৭ বলে ২৯ রান করে ডে কক ফিরে গেলেন প্যাভেলিয়নে। ৬ ওভারের মধ্যেই দু’জনকে ফেরালেন চেন্নাইয়ের শার্দূল ঠাকুর ও দীপক চাহার। দু’জনই ক্যাচ তুলে দিলেন এমএস ধোনিকে উইকেটের পিছনে। ১৭ বলে ১৫ রান করে ১২তম ওভারে আউট হন সূর্যকুমার যাদব। তাহিরের বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি। পরের ওভারেই ফিরলেন ক্রুনাল পাণ্ড্যে। সাত বলে সাত রান করলেন তিনি।

আবারো তাহির। সূর্যকুমারের পর ফেরালেন ইশান কিষানকে। ২৬ বলে ২৩ রান করে রায়নাকে ক্যাচ দিয়ে আউট হলেন তিনি। ১৫ ওভারে মাত্র ১০০ রানে মুম্বইয়ের প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যান ফিরে গেলেন প্যাভেলিয়নে। হার্দিক পাণ্ড্যে ১৬, দীপক চাহার ০ ও ম্যাকক্লেনাঘান ০ রান করে ফিরে যান প্যাভেলিয়নে। ২০ ওভার শেষে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ১৪৯-৮।

চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে তিন উইকেট নেন দীপক চাহার তিন ও শার্দূল ঠাকুর ও ইমরান তাহির দুটো করে উইকেট নেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হলো না চেন্নাই সুপার কিংসেরও। ওপেনার ফাফ দু প্লেসি ১৩ বলে ২৬ রান করে আউট হয়ে গেলেন। ১৪ বলে ৮ রান করে ফিরলেন সুরেশ রায়না ও এক রানে ফিরলেন অম্বাতি রায়ডু।

ধোনি আউট হতেই বড় ধাক্কা খেল চেন্নাই। দু’রান করে রান আউট হয়ে গেলে এমএস ধোনি। ডোয়েন ব্র্যাভো ১৫ রান করে আউট হয়ে গেলেন। একাই চেন্নাই ইনিংসকে টেনে নিয়ে গেলেন শেন ওয়াটসন। ৫৯ বলে ৮০ রান করে দুই বলে চার রান বাকি থাকতে আউট হলেন তিনি। ১ বলে ২ রানের লক্ষ্যে আউট হয়ে যান শার্দূল ঠাকুর। ১ রানে ম্যাচ জিতে যায় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। মুম্বইয়ের হয়ে দুই উইকেট নেন যশপ্রীত বুমরা। একটি করে উইকেট ক্রুনাল, মালিঙ্গা, রাহুলের।