আফগানদের হারিয়ে মিশন শুরু অস্ট্রেলিয়ার

স্পোর্টস ডেস্ক : আফগানিস্তানকে ৭ উইকেটে হারিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করল বর্তমান চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। আগে ব্যাট করে আফগানিস্তানের দেয়া ২০৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারের অপরাজিত (৮৯) ও অ্যারণ ফিঞ্চের (৬৬) রানের ওপর ভর করে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৪.৫ ওভারে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় অজিরা। এর আগে আগে ব্যাট করে ৩৮.২ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২০৭ রান সংগ্রহ করে আফগানরা। দলের সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন নাজিবুল্লাহ জাদরান।

বিশ্বকাপে ফেভারিট তকমা নিয়ে এবারও মাঠে নেমেছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়া। আর সেই দলের মোকাবেলায় সব হিসেব-নিকেশ মিলিয়ে আফগানিস্তান ছিলো অনেক পিছিয়ে। যেটা খেলায় বাস্তব চোখেই পরিলক্ষিত হয়েছে। তবুও নিজেদের দ্বিতীয় বিশ্বকাপ এবং যতটুকু অভিজ্ঞতাপূর্ণ দল তা নিয়েই ভালো কিছু উপহার দেয়ার চেষ্টা করেছে আফগানরা।

দু’দলের প্রথম ম্যাচে ব্রিস্টল কাউন্টি গ্রাউন্ডে সবুজ ঘাসবিহীন নিস্প্রভ প্রাণহীন মাঠে মুখোমুখি হয় আফগানিস্তান ও অস্ট্রেলিয়া। বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ম্যাচটি শুরু হয়। টসে জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন আফগান অধিনায়ক গুলবাদিন নায়েব।

টসে জিতে আগে ব্যাট করতে নেমে ৭৭ রান তুলতেই আফগানিস্তানের নেই ৫ উইকেট। শুরুতে শূন্য রানে দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে যায় অফগানরা। ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলে দলীয় শূন্য রানে মিচেল স্টার্কের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন মোহাম্মদ শেহজাদ। খেলার দ্বিতীয় ওভার ও পেট কমিন্সের প্রথম ওভারে আরেক ওপেনার হযরতউল্লাহ জাজাই উইকেটরক্ষক অ্যালেক্স কোরিকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন শূন্য রানে । সেখান থেকে রহমত শাহ ও হাসমতউল্লাহ শাহেদী দলের হাল ধরার চেষ্টা করলেও ১৮ রান করে হাসমতউল্লাহ শিকার হন অ্যাডাম জাম্পার। তার বিদায়ের পর বেশি সময় ক্রিজে থাকতে পারেননি রহমত শাহও।

৪৩ রান করে তিনিও ফেরেন। মাঠে নেমে ৭ রান করে ফেরেন মোহাম্মদ নবীও। ফের বিপর্যয়ে পড়লে গুলবাদিন নায়েব ও নাজিবুল্লাহ জাদরান দলকে এগিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেন। তবে বড় ইনিংস খেলতে পারেননি কেউই। ৩১ রান করে নায়েব ফেরেন স্টয়নিসের শিকার হয়ে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ নাজিবুল্লাহ ৪৯ বলে ৭ চার ও ২ ছয়ে ৫১ রান করেন। শেষ দিকে রশিদ খানের ২৭ ও মুজিবুর রহমানের ১৩ রানের ওপর ভর করে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৩৮.২ ওভারে ২০৭ রান সংগ্রহ করে আফগানরা।

অস্ট্রেলিয়া বোলারদের মধ্যে প্যাট কমিন্স ও অ্যাডাম জাম্পা ৩টি করে উইকেট শিকার করেন। মার্কোস স্টয়নিস ২টি ও মিচেল স্টার্ক নেন একটি উইকেট।