ডি ভিলিয়ার্সের বিশ্বকাপ খেলার আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে বোর্ড

স্পোর্টস ডেস্ক : অবসর ভেঙ্গে পুনরায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চেয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স। খেলতে চেয়েছিলন ইংল্যান্ডে চলমান ২০১৯ বিশ্বকাপ। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা নির্বাচকরা তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন। বিশ্বকাপের এক বছর আগে ২০১৮ সালের মে মাসে হঠাৎ করেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দল ঘোষনার মাত্র ২৪ ঘন্টা আগে পাওয়া তার প্রস্তাব গ্রহণ করেনি ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকা। নির্বাচকদের মতে তাকে পুনরায় সুযোগ দেয়াটা ভুল হবে। ডি ভিলিয়ার্সের অবসরের পর দলটি এক বছর একত্রে খেলেছে। তাই তাকে সুযোগ দেয়াটা ঠিক হবে না।

অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস, প্রধান কোচ ওটেস গিবসন এবং দল নির্বাচক কিমিটর আহবায়ক লিন্ডা জোন্ডির কাছে অবসর ভেঙ্গে পুনরায় ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন ডি ভিলিয়ার্স। তবে সেটা সম্ভব নয় বলে তাকে জানিয়ে দেয়া হয়েছিল। ডি ভিলয়ার্সের অনুরোধ বিবেচনা করা হয়নি।

মুলত বিশ্বকাপে দল এক নাগারে তিন ম্যাচ হেরে যাওয়ার পরই পুনরায় ডি ভিলিয়ার্সের বিষয়টি আলোচনায় আসে।
জোন্ডি বলেন, এ ব্যাটিং তারকা পুনরায় ফিরতে চায় শুনে তিনি ‘কষ্ট’ পেয়েছেন। তাকে দলভুক্ত করা নৈতিকভাবেই ঠিক হতোনা বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জোন্ডি বলেন, ‘অবসর না নিতে আমি ২০১৮ সালে ডি ভিলিয়ার্সকে অনুরোধ করেছিলাম। আমি তাকে ভাবতে সময় দিয়েছিলাম এবং বিশ্বকাপের আগে সতেজ ও ভাল অবস্থানে থাকতেও তাকে সুযোগ দিয়েছিলাম। কিন্তু আমার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে বলেছেন অবসর সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবেনা।’

তিনি আরো বলেন,‘নৈতিকতার ভিত্তিতেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছি। দল, নির্বাচন কমিটি, ফ্যাঞ্চাইজি পদ্ধতি এবং আমাদের খেলোয়ড়দের কাছে আমাদের নৈতিকভাবে পরিস্কার থাকতে হয়েছে।’
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে একটা সফল টেস্ট সিরিজ শেষ করার পর হঠাৎ করেই সামাজিক গণমাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে ডি ভিলিয়ার্সের অবসর ঘোষণায় দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট কর্মকর্তারা বিস্মিত হয়েছিলেন।

জোন্ডি বলেন, ‘১৮ এপ্রিল বিশ্বকাপ দল ঘোষণার আগ মুহূর্তে এবি’র ইচ্ছার বথা ফাফ ও গিবসন আমাকে জানিয়েছে। যা আমাদের সবাইকে কস্ট দিয়েছে। অবসর নেয়া থেকে বিরত থাকলে তাদের দলে নেয়া সম্ভব ছিল। আমাদের দল চূড়ান্ত ও নিশ্চিত করা হয়েছিল বিধায় আমাদের হাতে কোন বিকল্প ছিলনা। নিঃসন্দেহে বিশ্ব সেরা খেলোয়াড়দের একজন এবি। তবে সর্বোপরি আমাদেরকে নৈতিকতা ও নীতির সঙ্গে সৎ থাকতে হবে। এমন সিদ্ধান্তে আমাদের কোন অনুতাপ নেই।’

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*