শান্তির বার্তা দিলেন নুসরাত

বিনোদন ডেস্ক : লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে ভারতজুড়ে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেই চলেছে। সবশেষ গেল শনিবার পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগণার বসিরহাটের সন্দেশখালীতে দলীয় পতাকা উত্তোলন নিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছে।

এ আসনেই এবারে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন টলিউড অভিনেত্রী নুসরাত জাহান। শনিবারের সংঘর্ষের ঘটনায় সেখানকার পরিস্থিতি এখন চরমে। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রোববার এলাকায় যান তৃণমূলের বিশেষ প্রতিনিধি দল। কিন্তু যাননি সদ্য সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়া নুসরাত।

তবে, নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা ও তাদের পরিবারের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়েছেন টলিউড অভিনেত্রী। পাশাপাশি সবাইকে শান্ত থাকার আহবান জানিয়েছেন তিনি। সন্দেশখালির ঘটনা প্রসঙ্গে নুসরাত বলেন, কেন এমন হলো তা খতিয়ে দেখার চেষ্টা করা হচ্ছে। পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

শনিবারের ঘটনার সঙ্গে সাম্প্রদায়িকতার কোনও সম্পর্ক নেই উল্লেখ করে টলিউডের এ অভিনেত্রী বলেন, ‘‘আমি মানবতা এবং ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে। যাদের আত্মীয়-পরিজন নিহত হয়েছে, তাদের সকলের জন্য প্রার্থনা করছি।

একইসঙ্গে মানবতাই সবার আগে বলে জানিয়েছেন নুসরত। তার মতে, বসিরহাট ‘স্পর্শকাতর’ এলাকা। তা সত্ত্বেও সেখানে মানুষ দুর্ভোগে যাতে না পড়েন, তা নিশ্চিত করা হবে।ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, সন্দেশখালির ঘটনা নিয়ে নুসরাতের সঙ্গে কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানকার পরিস্থিতি অনুযায়ী কী কী করণীয়, সাংসদের জন্য পরবর্তীকালে দলীয় নেতৃত্বই তা স্থির করবেন বলে জানা গেছে।

দলের একাংশের মতে, নুসরাত সদ্য সাংসদ হয়েছেন। দৈনন্দিন রাজনীতির সঙ্গে বোঝাপড়াটা এখনও সেভাবে হয়নি তার। এই পরিস্থিতিতে এখনই এলাকায় গেলে কী কী করণীয়, তা বোঝা হয়তো কিছুটা সমস্যা হতো সাংসদের। সেই কারণে আপাতত তাকে এই প্রতিনিধি দলের বাইরে রাখা হয়েছিল বলেই দলীয় সূত্রের বক্তব্য।

দলের আরেক অংশের মতে, নুসরাত এলাকায় গেলে ভিড় বাড়বে। তাতে পরিস্থিতি আরও ‘বিগড়ে’ যেতে পারে। সেই কারণেও আপাতোত তাকে রেখেই প্রতিনিধি দল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

এবারের লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের শাসক দলের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোটে সংসদ নির্বাচিত হোন নুসরাত। বিজেপির বিপরীতে ২৬,৯১২ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেন টলিউডের এ অভিনেত্রী।

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*