তেঁতো করলার স্বাদ বদলে তৈরি করুন সুস্বাদু রেসিপি

স্বাদে তেঁতো হওয়ায় অনেকেরই পছন্দের তালিকা থেকে বাদ পড়ে করলা। তবে খেতে তেঁতো হলেও পুষ্টিগুণে পরিপূর্ণ এই সবজিটি। করলা স্বাস্থ্যের পক্ষে ভীষণ উপকারী।

প্রেশার নিয়ন্ত্রণ, দৃষ্টি শক্তি ভালো রাখা, ব্লাড সুগার লেভেল ঠিক রাখা, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো, এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজ করে করলা। তাইতো সবারই করলা খাওয়া জরুরি। তবে যারা করলা খেতে পছন্দ করেন না, তাদের জন্য আজ রয়েছে একটি ভিন্ন স্বাদের করলার আইটেম। গরম গরম ভাতের সঙ্গে এই পদটি খেতে দারুণ লাগবে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক রেসিপিটি-

উপকরণ: মসুরের ডাল আধা কাপ, মুগডাল আধা কাপ, করলা ৩টি, লাউ কিউব করে কাটা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুঁচি ৩ চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, কাঁচা মরিচ ৫টি, গোটা জিরা ১ চা চামচ, লবণ স্বাদ অনুযায়ী, রসুন কুঁচি ১ টেবিল চামচ, তেজপাতা ২টি, তেল ২ চা চামচ, ধনেপাতা ২ চা চামচ।

প্রণালী: প্রথমে দুই প্রকারের ডাল মিশিয়ে নিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিন। অল্প পানি দিয়ে লাউ ও ডাল একসঙ্গে সিদ্ধ করে নিন। সিদ্ধ করার সময় সামান্য লবণ দিয়ে নিন। অন্য একটি কড়াইয়ে মাঝারি আঁচে তেল গরম করুন। তেল গরম হয়ে আসলে এতে জিরা ও তেজপাতা দিয়ে দিন। এবার পেঁয়াজ কুঁচি ও রসুন কুঁচি দিয়ে নাড়তে থাকুন। পাতলা পাতলা করে কেটে রাখা করলা দিয়ে ভালো করে ভেজে নিন। করলা ভাজা ভাজা হলে কড়াইতে সিদ্ধ করে রাখা লাউ ও ডাল একসঙ্গে দিয়ে দিন। এবার লবণ, কাঁচামরিচ ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে দিন। সবকিছু ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে কিছুক্ষণের জন্য ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রাখুন। একটু পাতলা ডাল খেতে চাইলে পরিমাণ মতো পানি যোগ করুন। দশ মিনিট পর ঢাকনা খুলে দেখে নিন। ডাল মাখামাখা হয়ে আসলে ধনেপাতা ছড়িয়ে দিন।

ব্যস, অল্প সময়েই রান্না হয়ে যাবে করলা ডালের যুগলবন্দী! দুপুরে বা রাতের মেন্যুতে গরম ভাতের সঙ্গে করলা ডাল দারুণ মানিয়ে যাবে। আর সঙ্গে যদি কোনো ভর্তা, ভাজা শুকনো মরিচ আর এক ফালি লেবু থাকে, তাহলে তো কোনো কথাই নেই!

Be the first to comment

Leave a comment

Your email address will not be published.


*