কোন বিষয় নিয়ে পড়লে লাভবান হবে, বুঝবে কীভাবে?

মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিকের পর চলে আসে কেরিয়ার বাছাই পর্ব, যেটা প্রত্যেক ছাত্রছাত্রীর কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা সময়। কারণ সেই সময়ে নেওয়া একটু ভুল সিদ্ধান্তই কিন্তু তোমার জীবনটাকে একদম বদলে দিতে পারে। ফলে সেই মোড়ে দাঁড়িয়ে আছ যারা, তারা কীভাবে নিজেদের কেরিয়ার বাছাই পর্বটা সারবে, সেটা একবার দেখে নাও।

১) যে বিষয়ে তুমি সবচেয়ে বেশি নম্বর পেয়েছ সেই বিষয় নিয়েই এগোবে কিনা ভাবার আগে জেনে নাও, সেই বিষয়ের খুঁটিনাটি। কারণ মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিকের পড়ার সঙ্গে কিন্তু হায়ার স্টাডিজের পড়ার অনেকটাই অমিল।

২) যে বিষয়টি নিয়ে পড়বে সেই বিষয়টা নিয়ে কোথায় ভাল পড়ানো হয় সেটার খোঁজখবর আগে থেকেই তোমাকে নিয়ে রাখতে হবে।

৩) শুধু পড়লেই হবে না। একটা সময় পর রুজি-রোজগারটাও তো করতে হবে, তাই না? সেজন্য দেখে নাও, তোমার বাছাই করা বিষয় নিয়ে পড়ার পর কোথায় কেমন কাজ তুমি পেতে পার।

৪) অনেকেই যে ভুলটা করে থাকে সেটা হল চোখ বন্ধ করে নামকরা কলেজের দিকে দৌড়নো। সেদিকে না দৌড়ে বরং তোমার পছন্দের বিষয়ের ওপর নজর দাও। কারণ মনে রাখবে, কলেজ তোমার জীবনে থাকবে মাত্র তিন বছর কিন্তু তোমার বিষয়টা তোমার সঙ্গে থেকে যাবে সারা জীবন।

৫) তোমার বন্ধুরা যে বিষয় নিয়ে পড়ছে তুমিও তাদের দেখে সেই বিষয় নিয়ে পড়তে শুরু করে দিয়ো না। কারণ এটা কোনও জামাকাপড় নয় যে যখন ইচ্ছে চাইলেই তুমি বদল করে নিতে পারবে।

তা হলে জানা হয়ে গেল তো কীভাবে জীবনে আরও একধাপ এগোনোর প্রথম স্টেপটা তুমি ফেলবে? তাই বলছি একদম ঠান্ডা মাথায়, বুদ্ধি করে সবকিছু করো। এতে লাভ তোমারই হবে।