ধূমকেতুর ধাক্কা! ঝুঁকি বেড়েছে পৃথিবীর

পৃথিবীতে আছ়ড়ে পড়তে পারে ধূমকেতু। এমন একটা আশঙ্কা বরাবরই ছিল। গবেষকরা বলছেন, সেই ঝুঁকি বেড়েছে। মহাকাশে চোখ রেখে তাঁরা বলছেন, পৃথিবীর কাছাকাছি ধূমকেতুগুলির কী অবস্থা, তা নিয়ে গবেষণা চলেছে। কিন্তু তার বাইরে যা হচ্ছে, তা দুশ্চিন্তার।

বৃহস্পতির কক্ষপথের ওপারে ঘটছে নানা কাণ্ড। আর তা নিয়েই গবেষকরা চিন্তায়। কেননা, মহাকাশের সেই দূরবর্তী জায়গা থেকেই ধেয়ে আসতে পারে বিপদ।

গবেষকরা বলছেন, মঙ্গল এবং বৃহস্পতির মধ্যে গ্রহাণুর যে ‘বসতি’ রয়েছে, সেখানেই লুকিয়ে আসল বিপদ। গত দু’দশকে বেশ কিছু বড় ধূমকেতুর সন্ধান মিলেছে। মূলত বরফ এবং ধুলোর এই ধূমকেতুগুলির উপবৃত্তাকার কক্ষপথ শুরু হয় নেপচুন পেরিয়ে।

এই কক্ষপথগুলি বৃহস্পতি, শনি, ইউরেনাস এবং নেপচুন পর্যন্ত বিস্তৃত। এই গ্রহগুলির মাধ্যাকর্ষণ ক্ষেত্র মাঝেমধ্যে (৪০ হাজার থেকে ১ লক্ষ বছর) ধূমকেতুকে পৃথিবীর দিকে ঠেলে দেয়। গবেষকরা বলছেন, ধূমকেতুগুলি যত সূর্যের কাছাকাছি আসে, ততই তারা ভাঙতে থাকে।

ইউনিভার্সিটি অফ বাকিংহামের বিল নেপিয়ার বলছেন, ‘‘আমাদের নিকট প্রতিবেশীদের বাইরে এবার আমাদের দেখতে হবে। আমাদের গবেষণা তেমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে। আমরা যদি সঠিক হই, তা হলে এই সব দূরের ধূমকেতুগুলিই আমাদের বিপদের কারণ হতে পারে। ওদের ভালভাবে বোঝার এটাই শ্রেষ্ঠ সময়।’’